Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

কী সেবা কীভাবে পাবেন

০১। রেকর্ড় সংশোধন তথ্য হাল করন।

            রেকর্ড সংশোধন তথা হাল করণের জন্য আপনাকে নামজারী/ জমাভাগ/ জমা একত্রীকরণ করতে হবে আর এ জন্য আপনাকে ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে সহকারী কমিশনার(ভূমি) বরাবরে সাদা কাগজে দরখাস্ত করতে হবে।দরখাস্তের সাথে দলিলপত্রাদির ফটোকপি, পর্চা, ওয়ারিশান সনদ, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ফারায়েজ এর কপি দিতে হবে। আবেদনটি প্রাপ্তির পর সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা কর্তৃক তদন্ত করা হবে। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক শুনানী হবে। শুনানীর সময় মূল দলিল, পর্চা নিয়ে আসতে হবে প্রস্তাবটি মঞ্জুর হলে সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিস হতে ২৪৫ টাকা জমা দিয়ে ডি.সি.আর ও খারিজ খতিয়ান পেয়ে যাবেন আরএজন্য আপনার সর্বোচ্চ সময় লাগবে ৩০ হতে ৪৫ দিন।

 

০২। ভূমি উন্নয়ন কর সংক্রান্তঃ

            জমির শ্রেনীভেদে খাজনার পরিমাণ বিভিন্ন হয়। আপত্তি থাকলে এবং শ্রেনী পরিবর্তনের প্রয়োজন হলে শুনানীর জন্য ২০/= টাকার কোর্ট ফি দি~ূয় সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে আবেদন করুন।

 

০৩। যেকোন রেকর্ডের আদেশের নকল তুলতে জেলাপ্রশাসকের দপ্তরে রেকর্ড় রুমে আবেদন করুন।

 

০৪। অর্পিত সম্পত্তি (ভিপি) ইজারা গ্রহণঃ

            অর্পিত সম্পত্তি সাধারনত ১ (এক) বছরের জন্য ইজরা দেয়া হয়। জমি ও অবকাঠামোর ভিক্তিতে লীজ মানি নির্ধারিত হয়। প্রয়োজনে নবায়নের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে ২০/= টাকার কোর্ট ফি সহ বংলা বছরের শুরুতে আবেদন করুন। নবায়ন মঞ্জুর হলে নির্ধারিত লীজ মানি সংশ্লিষ্ট নাজির উপজেলা ভূমি অফিসে জমা দিয়ে ডি.সি.আর সংগ্রহ করুণ।

 

০৫। খাস জমি বন্দোবস্ততঃ

             খাস জমি দু‘ধর&&নর।  কৃষি ও অকৃষি। দুটই স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদী বন্দোবস্ত দেয়া যায়। চরঅঞ্চলে খাস জমি একসনা ভিক্তিক বন্দোবস্ত দেয়া হয়। চাষ যোগ্য জমি একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে ফসল বুনুন। বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করুণ।

০৭। ২৫ বিঘা পর্যন্ত খাজনা মওকুফঃ

            হালনাগাদ জমির বিবরণী দাখিল করে যদি শুধু মাত্র কৃষি জমি ২৫ বিঘা বা তার নিচে হয় তাহলে খাজনা মওকুফের সুযোগ নিন। আর এ কাজে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন করুন।

 

০৮। জমির শ্রেনী পরিবর্তনঃ পুকুর খনন, জলাশয় ভরাট, কৃষি খাস জমি অকৃষিতে রূপান্তর, যত্রতত্র ‘স’ মিল স্থাপন ও পরিবেশ বিঘ্নকারী প্রতিষ্ঠান স্থাপনে বিরত থাকুন। জনস্বার্থে প্রয়োজন হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন করুন।

 

০৯। এ অফিসে প্রজাগণের নামে রেকর্ডীয় জমি পরিমাপ করে না।

 

১০। ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে যে কোন সমস্যা বা পরামর্শের প্রয়োজন হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর সাথে সরাসরি অথবা ০৬৬২৪-৫৬১৩০ নং টেলিফোনে অথবা উপজেলানির্বাহী অফিসার, রেরভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), জেলা প্রশাসকের সাথে যোগাযোগ করুন।

কী সেবা কীভাবে পাবেন

০১। রেকর্ড় সংশোধন তথ্য হাল করন।

            রেকর্ড সংশোধন তথা হাল করণের জন্য আপনাকে নামজারী/ জমাভাগ/ জমা একত্রীকরণ করতে হবে আর এ জন্য আপনাকে ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে সহকারী কমিশনার(ভূমি) বরাবরে সাদা কাগজে দরখাস্ত করতে হবে।দরখাস্তের সাথে দলিলপত্রাদির ফটোকপি, পর্চা, ওয়ারিশান সনদ, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ফারায়েজ এর কপি দিতে হবে। আবেদনটি প্রাপ্তির পর সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা কর্তৃক তদন্ত করা হবে। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক শুনানী হবে। শুনানীর সময় মূল দলিল, পর্চা নিয়ে আসতে হবে প্রস্তাবটি মঞ্জুর হলে সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিস হতে ২৪৫ টাকা জমা দিয়ে ডি.সি.আর ও খারিজ খতিয়ান পেয়ে যাবেন আরএজন্য আপনার সর্বোচ্চ সময় লাগবে ৩০ হতে ৪৫ দিন।

 

০২। ভূমি উন্নয়ন কর সংক্রান্তঃ

            জমির শ্রেনীভেদে খাজনার পরিমাণ বিভিন্ন হয়। আপত্তি থাকলে এবং শ্রেনী পরিবর্তনের প্রয়োজন হলে শুনানীর জন্য ২০/= টাকার কোর্ট ফি দি~ূয় সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে আবেদন করুন।

 

০৩। যেকোন রেকর্ডের আদেশের নকল তুলতে জেলাপ্রশাসকের দপ্তরে রেকর্ড় রুমে আবেদন করুন।

 

০৪। অর্পিত সম্পত্তি (ভিপি) ইজারা গ্রহণঃ

            অর্পিত সম্পত্তি সাধারনত ১ (এক) বছরের জন্য ইজরা দেয়া হয়। জমি ও অবকাঠামোর ভিক্তিতে লীজ মানি নির্ধারিত হয়। প্রয়োজনে নবায়নের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে ২০/= টাকার কোর্ট ফি সহ বংলা বছরের শুরুতে আবেদন করুন। নবায়ন মঞ্জুর হলে নির্ধারিত লীজ মানি সংশ্লিষ্ট নাজির উপজেলা ভূমি অফিসে জমা দিয়ে ডি.সি.আর সংগ্রহ করুণ।

 

০৫। খাস জমি বন্দোবস্ততঃ

             খাস জমি দু‘ধর&&নর।  কৃষি ও অকৃষি। দুটই স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদী বন্দোবস্ত দেয়া যায়। চরঅঞ্চলে খাস জমি একসনা ভিক্তিক বন্দোবস্ত দেয়া হয়। চাষ যোগ্য জমি একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে ফসল বুনুন। বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করুণ।

০৭। ২৫ বিঘা পর্যন্ত খাজনা মওকুফঃ

            হালনাগাদ জমির বিবরণী দাখিল করে যদি শুধু মাত্র কৃষি জমি ২৫ বিঘা বা তার নিচে হয় তাহলে খাজনা মওকুফের সুযোগ নিন। আর এ কাজে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন করুন।

 

০৮। জমির শ্রেনী পরিবর্তনঃ পুকুর খনন, জলাশয় ভরাট, কৃষি খাস জমি অকৃষিতে রূপান্তর, যত্রতত্র ‘স’ মিল স্থাপন ও পরিবেশ বিঘ্নকারী প্রতিষ্ঠান স্থাপনে বিরত থাকুন। জনস্বার্থে প্রয়োজন হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন করুন।

 

০৯। এ অফিসে প্রজাগণের নামে রেকর্ডীয় জমি পরিমাপ করে না।

 

১০। ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে যে কোন সমস্যা বা পরামর্শের প্রয়োজন হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর সাথে সরাসরি অথবা ০৬৬২৪-৫৬১৩০ নং টেলিফোনে অথবা উপজেলানির্বাহী অফিসার, রেরভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), জেলা প্রশাসকের সাথে যোগাযোগ করুন।

 

কী সেবা কীভাবে পাবেন

০১। রেকর্ড় সংশোধন তথ্য হাল করন।

            রেকর্ড সংশোধন তথা হাল করণের জন্য আপনাকে নামজারী/ জমাভাগ/ জমা একত্রীকরণ করতে হবে আর এ জন্য আপনাকে ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে সহকারী কমিশনার(ভূমি) বরাবরে সাদা কাগজে দরখাস্ত করতে হবে।দরখাস্তের সাথে দলিলপত্রাদির ফটোকপি, পর্চা, ওয়ারিশান সনদ, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ফারায়েজ এর কপি দিতে হবে। আবেদনটি প্রাপ্তির পর সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা কর্তৃক তদন্ত করা হবে। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক শুনানী হবে। শুনানীর সময় মূল দলিল, পর্চা নিয়ে আসতে হবে প্রস্তাবটি মঞ্জুর হলে সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিস হতে ২৪৫ টাকা জমা দিয়ে ডি.সি.আর ও খারিজ খতিয়ান পেয়ে যাবেন আরএজন্য আপনার সর্বোচ্চ সময় লাগবে ৩০ হতে ৪৫ দিন।

 

০২। ভূমি উন্নয়ন কর সংক্রান্তঃ

            জমির শ্রেনীভেদে খাজনার পরিমাণ বিভিন্ন হয়। আপত্তি থাকলে এবং শ্রেনী পরিবর্তনের প্রয়োজন হলে শুনানীর জন্য ২০/= টাকার কোর্ট ফি দি~ূয় সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে আবেদন করুন।

 

০৩। যেকোন রেকর্ডের আদেশের নকল তুলতে জেলাপ্রশাসকের দপ্তরে রেকর্ড় রুমে আবেদন করুন।

 

০৪। অর্পিত সম্পত্তি (ভিপি) ইজারা গ্রহণঃ

            অর্পিত সম্পত্তি সাধারনত ১ (এক) বছরের জন্য ইজরা দেয়া হয়। জমি ও অবকাঠামোর ভিক্তিতে লীজ মানি নির্ধারিত হয়। প্রয়োজনে নবায়নের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে ২০/= টাকার কোর্ট ফি সহ বংলা বছরের শুরুতে আবেদন করুন। নবায়ন মঞ্জুর হলে নির্ধারিত লীজ মানি সংশ্লিষ্ট নাজির উপজেলা ভূমি অফিসে জমা দিয়ে ডি.সি.আর সংগ্রহ করুণ।

 

০৫। খাস জমি বন্দোবস্ততঃ

             খাস জমি দু‘ধর&&নর।  কৃষি ও অকৃষি। দুটই স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদী বন্দোবস্ত দেয়া যায়। চরঅঞ্চলে খাস জমি একসনা ভিক্তিক বন্দোবস্ত দেয়া হয়। চাষ যোগ্য জমি একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে ফসল বুনুন। বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করুণ।

০৭। ২৫ বিঘা পর্যন্ত খাজনা মওকুফঃ

            হালনাগাদ জমির বিবরণী দাখিল করে যদি শুধু মাত্র কৃষি জমি ২৫ বিঘা বা তার নিচে হয় তাহলে খাজনা মওকুফের সুযোগ নিন। আর এ কাজে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন করুন।

 

০৮। জমির শ্রেনী পরিবর্তনঃ পুকুর খনন, জলাশয় ভরাট, কৃষি খাস জমি অকৃষিতে রূপান্তর, যত্রতত্র ‘স’ মিল স্থাপন ও পরিবেশ বিঘ্নকারী প্রতিষ্ঠান স্থাপনে বিরত থাকুন। জনস্বার্থে প্রয়োজন হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন করুন।

 

০৯। এ অফিসে প্রজাগণের নামে রেকর্ডীয় জমি পরিমাপ করে না।

 

১০। ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে যে কোন সমস্যা বা পরামর্শের প্রয়োজন হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর সাথে সরাসরি অথবা ০৬৬২৪-৫৬১৩০ নং টেলিফোনে অথবা উপজেলানির্বাহী অফিসার, রেরভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), জেলা প্রশাসকের সাথে যোগাযোগ করুন।

কী সেবা কীভাবে পাবেন

০১। রেকর্ড় সংশোধন তথ্য হাল করন।

            রেকর্ড সংশোধন তথা হাল করণের জন্য আপনাকে নামজারী/ জমাভাগ/ জমা একত্রীকরণ করতে হবে আর এ জন্য আপনাকে ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে সহকারী কমিশনার(ভূমি) বরাবরে সাদা কাগজে দরখাস্ত করতে হবে।দরখাস্তের সাথে দলিলপত্রাদির ফটোকপি, পর্চা, ওয়ারিশান সনদ, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ফারায়েজ এর কপি দিতে হবে। আবেদনটি প্রাপ্তির পর সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা কর্তৃক তদন্ত করা হবে। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক শুনানী হবে। শুনানীর সময় মূল দলিল, পর্চা নিয়ে আসতে হবে প্রস্তাবটি মঞ্জুর হলে সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিস হতে ২৪৫ টাকা জমা দিয়ে ডি.সি.আর ও খারিজ খতিয়ান পেয়ে যাবেন আরএজন্য আপনার সর্বোচ্চ সময় লাগবে ৩০ হতে ৪৫ দিন।

 

০২। ভূমি উন্নয়ন কর সংক্রান্তঃ

            জমির শ্রেনীভেদে খাজনার পরিমাণ বিভিন্ন হয়। আপত্তি থাকলে এবং শ্রেনী পরিবর্তনের প্রয়োজন হলে শুনানীর জন্য ২০/= টাকার কোর্ট ফি দি~ূয় সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে আবেদন করুন।

 

০৩। যেকোন রেকর্ডের আদেশের নকল তুলতে জেলাপ্রশাসকের দপ্তরে রেকর্ড় রুমে আবেদন করুন।

 

০৪। অর্পিত সম্পত্তি (ভিপি) ইজারা গ্রহণঃ

            অর্পিত সম্পত্তি সাধারনত ১ (এক) বছরের জন্য ইজরা দেয়া হয়। জমি ও অবকাঠামোর ভিক্তিতে লীজ মানি নির্ধারিত হয়। প্রয়োজনে নবায়নের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে ২০/= টাকার কোর্ট ফি সহ বংলা বছরের শুরুতে আবেদন করুন। নবায়ন মঞ্জুর হলে নির্ধারিত লীজ মানি সংশ্লিষ্ট নাজির উপজেলা ভূমি অফিসে জমা দিয়ে ডি.সি.আর সংগ্রহ করুণ।

 

০৫। খাস জমি বন্দোবস্ততঃ

             খাস জমি দু‘ধর&&নর।  কৃষি ও অকৃষি। দুটই স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদী বন্দোবস্ত দেয়া যায়। চরঅঞ্চলে খাস জমি একসনা ভিক্তিক বন্দোবস্ত দেয়া হয়। চাষ যোগ্য জমি একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে ফসল বুনুন। বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করুণ।

০৭। ২৫ বিঘা পর্যন্ত খাজনা মওকুফঃ

            হালনাগাদ জমির বিবরণী দাখিল করে যদি শুধু মাত্র কৃষি জমি ২৫ বিঘা বা তার নিচে হয় তাহলে খাজনা মওকুফের সুযোগ নিন। আর এ কাজে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন করুন।

 

০৮। জমির শ্রেনী পরিবর্তনঃ পুকুর খনন, জলাশয় ভরাট, কৃষি খাস জমি অকৃষিতে রূপান্তর, যত্রতত্র ‘স’ মিল স্থাপন ও পরিবেশ বিঘ্নকারী প্রতিষ্ঠান স্থাপনে বিরত থাকুন। জনস্বার্থে প্রয়োজন হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর ২০/= টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন করুন।

 

০৯। এ অফিসে প্রজাগণের নামে রেকর্ডীয় জমি পরিমাপ করে না।

 

১০। ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে যে কোন সমস্যা বা পরামর্শের প্রয়োজন হলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর সাথে সরাসরি অথবা ০৬৬৬১৩৬৩ নং টেলিফোনে অথবা উপজেলানির্বাহী অফিসার, রেরভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), জেলা প্রশাসকের সাথে যোগাযোগ করুন।

 

পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে

রোজী আক্তার

সহকারী কমিশনার (ভূমি)

মাদারীপুর সদর, মাদারীপুর